জাওয়াবদিহীতা

0
130
আল্লাহর দেয়া নেআ’মতের বিষয়ে জাওয়াবদিহী সম্পর্কেঃ
৮৭. রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন- কেয়ামতের দিন আদম সন্তানকে এভাবে হাযির করা হবে যেন একটা মেষ শাবক। তারপর তাকে আল্লাহর সামনে দাড় করান হবে। তখন আল্লাহ তাকে বলবেন, “আমি তোমাকে রিযিক দিয়েছিলাম। তোমার প্রতি উত্তমরূপে খেয়াল করেছিলাম এবং তোমাকে নেআ’মত দান করেছিলাম। তার পরিবর্তে তুমি কি কাজ করেছ?” সে বলবে, “আমি তা সঞ্চয় করেছিলাম, তা বাড়িয়েছিলাম; আর আমার যা কিছু ছিল তার অধিকাংশ রেখে এসেছি। আপনি আমাকে পুনরায় পৃথিবীতে পাঠিয়ে দিন, আমি যেন তা নিয়ে আসতে পারি।” তখন আল্লাহ বলবেন, “যা তুমি অগ্রিম পাঠিয়েছিলে আমাকে তা দেখাও।” সে পুনরায় বলবে, “হে আমার রব, আমি তা সঞ্চয় করেছিলাম, তা বৃদ্ধি করেছিলাম, তারপর আমার যা কিছু ছিল তার অধিকাংশ রেখে এসেছি। আমাকে আবার পৃথিবীতে পাঠিয়ে দিন, যেন আমি তা নিয়ে আসতে পারি।” অনন্তর যখন সাব্যস্ত হবে যে, বান্দা উত্তম কিছু অগ্রিম পাঠায়নি, তখন তাকে জাহান্নামে নিয়ে যাওয়া হবে।

তিরমিযি এ হাদীসটি হযরত আনাস (রা) থেকে সংগ্রহ করেছেন।

৮৮. রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন- নিশ্চয়ই কেয়ামতের দিন বান্দাকে সর্বপ্রথম যে প্রশ্ন করা হবে তা পার্থিব নেআ’মতের ব্যাপারে। তাকে জিজ্ঞেস করা হবে, “আমি কি তোমায় দৈহিক সুস্থতা দান করিনি? আমি কি ঠান্ডা পানীয় দ্বারা তোমার তৃষ্ণা নির্বারণ করিনি?”

তিরমিযি এ হাদীসটি হযরত আবূ হুরায়রা (রা) থেকে সংগ্রহ করেছেন।

৮৯. কেয়ামতের দিন জনৈক বান্দাকে উপস্থিত করা হবে এবং তাকে বলা হবে, “আমি কি তোমাকে কান, চোখ, ঐশ্বর্য্য ও সন্তান দেইনি? আর তোমার জন্য আমি চতুষপদ পশুকে তোমার অনুগত করে দিয়েছিলাম এবং চাষের যমীনকেও। আর তোমাকে নেতৃত্ব করার জন্য অবকাশ দিয়েছিলাম। তখন তুমি কি চিন্তা করেছিলে যে, আজ তুমি আমার সম্মুখীন হবে?” তখন সে বলবে, “না।” আল্লাহ্‌ তখন তাকে বলবেন, “আজ আমিও তোমাকে ভুলে যাব, যেভাবে তুমি আমাকে ভুলে গিয়াছিলে।”

তিরমিযী এ হাদীসটি হযরত আবূ হুরায়রা (রা) থেকে সংগ্রহ করেছেন।

৯০. রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন- সুমহান আল্লাহ বলেন, “হে আদম সন্তান তুমি আমার প্রতি ইনসাফ করো না। আমি নেআ’মত দিয়ে তোমার প্রতি ভালবাসা জাহির করি। আর তুমি পাপ অর্জন করে আমাকে কাছে ঘৃণ্য হও। আমার তরফ থেকে তোমার প্রতি অবতীর্ণ করা হয় কল্যাণ। আর তোমার দিক থেকে আমার প্রতি উঠে আসে মন্দ। আর মহান ফেরেশতা তোমার দিক থেকে প্রত্যেক দিন ও রাতে একটি মন্দ আমল আমার কাছে নিয়ে আসে। হে আদম সন্তান! যদি তুমি অপরের কাছ থেকে তোমার খারাপ বর্ণনা শুনতে, তবে অতি শীঘ্রই তুমি তাকে ঘৃণা করতে শুরু করতে।”

দায়লামী এ হাদীসটি হযরত আলী (রা) থেকে সংগ্রহ করেছেন।

৯১. রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন- কেয়ামত দিবসে আল্লাহ তার বান্দাকে বলবেন, “হে আদম সন্তান! আমি তোমাকে ঘোড়া ও উটের উপর সওয়ার করিনি? আমি কি তোমাকে নারী বিয়ে করাইনি? আমি কি তোমাকে এরূপ (পদে সমাসীন) করিনি যেন তুমি নেতৃত্ব করতে পারে?” তখন সে বলবে-“হ্যাঁ, আমার প্রতিপালক!” তখন আল্লাহ বলবেন, “এর শুকরিয়া কোথায়?”

এ হাদীসটি বায়হাকী হযরত আবূ হুরাইরা (রা) থেকে সংগ্রহ করেছেন।