আল্লাহর লজ্জা

0
182
বান্দাদেরকে শাস্তি দিতে আল্লাহ লজ্জা পানঃ
৬৯. রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন- জিবরাঈ’ল (আ) আমাকে মহান ও পরাক্রান্ত আল্লাহ সম্পর্কে জানিয়েছেন, আল্লাহ্‌ বলেছেন, “আমার ইযযত, জালাল ও একত্বের কসম! আমার সাথে আমার বান্দাগণের যে প্রয়োজন রয়েছে এর কসম! এবং আমার আরশের উপর আসন নেয়ার কসম। নিশ্চয় আমি আমার সে বান্দা ও বান্দিকে শাস্তি দতিে লজ্জা বোধ করি যারা ইসলামে অবস্থান করে বয়-বৃদ্ধ হয়েছে। অতঃপর রাসূল (সাঃ) কাঁদতে শুরু করলেন। আরয করা হল, “ইয়া রাসূলাল্লাহ্‌! আপনি কাদছেন কেন? তিনি বললেন, “আমি সে ব্যক্তির জন্য কাঁদি যার জন্য আল্লাহ লজ্জ বোধ করেন। অথচ মহান আল্লাহর সম্মুখে সে লজ্জিত হয় না।”

খালীল ও রাফিঈ’ এ হাদীসটি হযরত আনাস (রা) থেকে সংগ্রহ করেছেন।

৭০ . রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন- সুমহান আল্লাহ্‌ বলেন, “আমার যে বান্দা আমার দিকে দু’হাত তুলে ধরে তাকে খালি হাতে ফিরিয়ে দিতে আমি শরম পাই।” ফেরেশতাগন আরয করেন, “হে আমাদের প্রতিপালক! সে এর উপযুক্ত নয়।” মহান আল্লাহ বলেন, “কিন্তু আমি তো তাকওয়া ও মার অধিকারী।” আমি তোমাদেরকে সাক্ষী রাখছি যে, নিশ্চয়ই আমি তাকে মার্জনা করে দিয়েছি।

হাকেম ও তিরমিযী এ হাদীসটি আনাস (রা) থেকে সংগ্রহ করেছেন।

৭১. রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন- সুমহান আল্লাহ ্‌ বলেন, “নিশ্চয়ই আমি সেই বান্দা ও বাঁদীর নিকট লজ্জিত- যারা ইসলামে অবস্থান করে বড় হয়েছে। অর্থাৎ ইসলামে থেকে যে বান্দার দাড়ি সাদা হয়েছে এবং ইসলামে অবস্থান করে যে বাঁদীর চুল পেকেছে। এর পরও আমি কি করে তাদেরকে আগুনে পুড়িয়ে শাস্তি দেব।”

আবূ ইয়ালা এ হাদীসটি হযরত আনাস (রা) থেকে সংগ্রহ করেছেন।